নরসিংদীতে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া

আশিকুর রহমান, নরসিংদী জেলা প্রতিনিধি: আজ শোকাবহ ১৫ আগস্ট। বাঙালি জাতির ইতিহাসে সবচেয়ে কলঙ্কিত ও বেদনার দিন। স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, তার সহধর্মিণী শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব সহ সকল শহীদদের স্বরণে বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ঔষধ বিতরণ, স্বরণে আলোচনা সভা দোয়া মাহফিল ও এতিম শিশুদের মাঝে খাবারের আয়োজন করা হয়।

সোমবার (১৫ই আগষ্ট) নরসিংদী শহরের সুতাপট্টির মোড়ে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন নরসিংদী শহর আওয়ামী যুবলীগের সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব আশরাফ হোসেন সরকার। দিনব্যাপী এ কর্মসূচীর প্রথম অধিবেশনের প্রথম প্রহরে কোরআন তেলাওয়াত, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, জাতীয় সংগীত পরিবেশন ও অসহায় গরীব রোগীদের মাঝে বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ঔষধ বিতরণ করা হয়।

এরপর দ্বিতীয় অধিবেশনে মূল অনুষ্ঠান বঙ্গবন্ধুর স্বরণে আলোচনা, দোয়া ও এতিম শিশু এবং বিভিন্ন এতিমখানায় রান্না করা খাবার বিতরণ। আলোচনা সভায় আশরাফ হোসেন সরকার বলেন, ১৯৭৫ সালের এই দিন জাতি হারিয়েছে তার গর্ব, আবহমান বাংলা ও বাঙালির আরাধ্য পুরুষ, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে।

এ দিনে বাঙালি জাতির ইতিহাসে কলঙ্ক লেপন করেছিল সেনাবাহিনীর কিছু বিপথগামী কর্মকর্তা আর ক্ষমতালিপ্সু কতিপয় রাজনীতিক। রাজনীতির সঙ্গে সামান্যতম সম্পৃক্ততা না থাকা সত্ত্বেও বঙ্গবন্ধু পরিবারের নারী-শিশুরাও সেদিন রেহাই পায়নি ঘৃণ্য কাপুরুষ এ ঘাতক চক্রের হাত থেকে। সেদিন বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে আরও প্রাণ হারান তাঁর সহধর্মিণী, তিন ছেলেসহ পরিবারের ১৮ জন সদস্য।

বিদেশে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বাঙালি জাতি গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে পালন করে দিনটি। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ১৪ দলের শরিক গণআজাদী লীগের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মোঃ সরওয়ার হোসেন, ন্যাশনাল প্রেস সোসাইটির চেয়ারম্যান মোঃ মাহবুবুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ

সম্পাদক সুভাষ সাহা, বাংলাদেশ পল্লী চিকিৎসক সমিতির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সবুজ আলী, শহর যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান রিপন, শহর যুবলীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক আশিকুর রহমান, নজরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক মোস্তফা আলী সরকার, সদর থানা তাঁতী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মহিউদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা

বন্যা ভূঁইয়া, আক্তার হোসেনসহ আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠন, সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা। আলোচনা শেষে স্থানীয় মসজিদের ইমাম মাওলানা আসাদুজ্জামান দোয়া পরিচালনা করেন এবং গনভোজ ও বিভিন্ন এতিমখানায় এতিম অসহায় শিশুদের মাঝে উন্নতমানের খাবারের আয়োজন করা হয়।