যে ৫ খাবার শরীর ঠান্ডা রাখে

অগ্নিশিখা ডেস্ক : প্রচণ্ড আর্দ্রতার কারণে আমাদের এখন প্রচুর পরিমাণে ঘাম হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে শরীরের জন্য দরকার প্রচুর পানি। না হলে শরীরে পানি কমে গিয়ে ডিহাইড্রেশন বা হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে।

শরীরে পানির ঘাটতি মেটানোর পাশাপশি শরীরকে ঠান্ডা রাখাও ভীষণ দরকার। এ ক্ষেত্রে ভরসা রাখতে পারেন বিভিন্ন প্রকার পানীয়তে। তবে তা বাজারের কেনা পানীয় না হয়। শরীর ঠাণ্ডা রাখতে প্রাকৃতিক পানীয়ের পান করতে হবে।

ডাবের পানি: ডাবের পানি ইলেকট্রোলাইটের খুব ভাল উৎস। গরমের দিনে নিয়মিত ডাবের পানি খেলে শরীরে ডিহাইড্রেশনের ঝুঁকি কমে। পেট ঠান্ডা থাকে। ডাবের পানি শরীরে সোডিয়াম, পটাশিয়ামের ভারসাম্য বজায় রাখে। এ ছাড়াও এই পানিতে ফাইবার, ক্যালশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম ভরপুর মাত্রায় থাকে।

ঘোল: গরমের দিনে কম-বেশি সকলেরই হজমের সমস্যা হয়। এই সমস্যা দূর করতে এই সময়ে খাওয়ার পাতে টক দই রাখতে ভুলবেন না। নিয়মিত দইয়ের ঘোল খেতে পারলে আরও ভাল।

কাঁচা আমের শরবত: কাঁচ আম শরীর থেকে দূষিত পদার্থগুলো দূর করতে বেশ উপকারী। কাঁচা আমের শরবত খেলে শরীরে তাপপাত্রার ভারসাম্য বজায় থাকে। কাঁচা আম ভিটামিন এ, বি ১, বি ২ আর সি-তে ভরপুর। এ ছাড়াও এতে থাকে পটাশিয়াম, সোডিয়াম ও ম্যাগনেশিয়ামের মতো খনিজ উপাদান। গরমে খাবার তালিকায় কাঁচা আমের শরবত রাখুন।

ছাতুর শরবত: ছাতুর মধ্যে রয়েছে আয়রন, ম্যাঙ্গানিজ, ম্যাগনেশিয়ামের মতো নানা জরুরি উপাদান। ছাতুর শরবত শরীরের উষ্ণতা কমিয়ে আনে, ফলে গরমের দিনে এর জুড়ি মেলা ভার। পেটের সমস্যা হলেও এই শরবত খেলে উপকার পাবেন।

আখের রস: গরমের দিনে আখের রস খুবই সহজলভ্য একটি পুষ্টিকর প্রাকৃতিক পানীয়। এতে রয়েছে আয়রন, পটাশিয়ামের মতো উপাদান, যা শরীর চাঙ্গা করতে পারে খুব অল্প সময়েই। হজমে সমস্যা থাকলেও দূর করে আখের রস।